মৃদু শৈত্যপ্রবাহে বেড়েছে শীতের তীব্রতা : বাতাসে শীতল প্রবাহ

0

চুয়াডাঙ্গায় শীতবস্ত্র বিতরণ অব্যাহত রেখেছে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান
স্টাফ রিপোর্টার: শীত মৌসুমের মাঝামাঝিতে আবারও বেড়েছে শীতের তীব্রতা। যদিও মৌসুমের শুরুতে দেশের ওপর দিয়ে কয়েক দফায় থেমে থেমে বয়ে গেছে মৃদু ও মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ। এখন আবার শুরু হয়েছে শীতের প্রকোপ। ইতোমধ্যে আবারও দেশের বিভিন্ন স্থানে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বইতে শুরু করেছে, যা মাঘের শুরুত মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহে পরিণত হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া বিভাগ (বিএমডি)। এদিকে চুয়াডাঙ্গায় শীতবস্ত্র বিতরণ অব্যাহত রেখেছে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান।
আবহাওয়াবিদরা বলছেন, শীতের অনুভূতি বৃদ্ধির ক্ষেত্রে বেশি ভূমিকা রাখছে শীতল বায়ুর প্রবাহ। চুয়াডাঙ্গাসহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় রোদ্রাৎজ্জল থাকলেও ঘন কুয়াশার কারণে গতকাল রোববার সারাদিন রাজধানীতে সূর্যের দেখা মেলেনি। দেশের আরও বেশকিছু এলাকায় শীতের চিত্র অনেকটা একই। অপরদিকে উচ্চবলয় পশ্চিমবঙ্গসহ বাংলাদেশের তৎসংলগ্ন পশ্চিমাঞ্চল পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। এসব কারণে সারা দেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা হ্রাস পেয়েছে। এটা আরও অব্যাহত থাকতে পারে।
গতকাল রোববার দেশে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিলো রাজারহাটে ৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকায় সর্বনি¤œ তাপমাত্রা ছিলো ১৩ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। চুয়াডাঙ্গায় সর্বনি¤œ ৯ দশমিক ৮ ডিগ্রি এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৩ দশমিক শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়।
তাপমাত্রা ৮ থেকে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নামলে তাকে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বলে। আর তাপমাত্রা ৬ থেকে ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস হলে তাকে মাঝারি এবং ৪ থেকে ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে গেলে তা তীব্র শৈত্যপ্রবাহ। সেই হিসাবে দেশে কোথাও কোথাও মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বিরাজমান।
বিএমডির আবহাওয়াবিদ ড. আবুল কালাম মল্লিক বলেন, বৃহস্পতিবার ঢাকাসহ দেশের কয়েকটি স্থানে বৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া উচ্চচাপ বলয়ের বিস্তার বাংলাদেশেও বিস্তার লাভ করেছে। শীতল বাতাসের প্রবাহ অব্যাহত আছে। এসব কারণে ধরণী কিছুটা শীতল আছে। আগামী ৩-৪ দিন এই পরিস্থিতি অব্যাহত থাকতে পারে। এতে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ দেখা দিতে পারে।
জীবননগর ব্যুরো/আন্দুলবাড়িয়া প্রতিনিধি জানিয়েছেন, চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশের উদ্যোগে জীবননগর উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের অসহায়, হতদরিদ্র ও ছিন্নমূল মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল রোববার বিকেলে রায়পুরে এ শীতবস্ত্র বিরতণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার মো. জাহিদুল ইসলাম। শীতবস্ত্র বিতরণের পূর্বে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভায় তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্য দিতে গিয়ে এসপি জাহিদুল ইসলাম বলেন, দেশে মানুষের মাথাপিচু আয় বাড়লেও এখনও কিছু মানুষ আছে যারা সমাজে অবহেলিত ও দরিদ্র সীমানার নিচে বসবাস করে। অসহায় এ সকল মানুষগুলো তাদের চাহিদার ন্যূনতম সংস্থান করতে পারে না। ফলে এসকল মানুষ তীব্র এ শীতের মধ্যে একটু নিশ্চিন্তে ও আরামে ঘুমাতে যেতে পারে না। চরম কষ্ট করে। আর এ জন্যই অসহায় এ সকল মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করার উদ্যোগ পুলিশের পক্ষ থেকে গ্রহণ করা করা হয়েছে। তিনি বলেন, আমি মনে করি সমাজের দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের অবশ্যই নিজ নিজ অবস্থান থেকে তাগিদ অনুভব করেই অসহায় এসকল মানুষের পাশে দাঁড়ানো উচিৎ। যার যতটুকু সামর্থ সে ততটুকু নিয়ে এগিয়ে আসলে অসহায় এসকল মানুষগুলো শান্তি পাবে। ধর্মীয় দিক থেকে সওয়াবের কাজও হবে। এ জন্য তিনি অসহায় দরিদ্র ও ছিন্নমূল মানুষের পাশে দাঁড়াতে বিত্তবানদের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান। রায়পুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে রায়পুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ শাহর সভাপতিত্বে শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (দামুড়হুদা-জীবননগর সার্কেল) আবু রাসেল, জীবননগর থানা অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম, রায়পুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান তাহাজ্জত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান মাস্টার। জীবননগর থানার ওসি (তদন্ত) ফেরদৌস ওয়াহিদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন রায়পুর ইউনিয়ন লোকমোর্চার সভাপতি সাজ্জাদ বিশ্বাস, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।
দামুড়হুদা ব্যুরো জানিয়েছে, দামুড়হুদার মোক্তারপুরে শিশু শিক্ষার্থীদের মাঝে শীতবস্ত্র (জ্যাকেট ও ট্রাউজার) বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল রোববার সকাল ১০টার দিকে মোক্তারপুরস্থ জামান সোস্যাল ফাউন্ডেশন কর্তৃক পরিচালিত প্রাক-প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশু শ্রেণির ৩৩ জন শিশু শিক্ষার্থীদের মাঝে উন্নত মানের জ্যাকেট ও ট্রাউজার বিতরণ করা হয়। চুয়াডাঙ্গা জজ আদালতের সিনিয়র সহকারী জজ জেলা লিগ্যাল এইড অফিসার মো. শামসুজ্জামান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শিশু শিক্ষার্থীদের হাতে শীতবস্ত্র তুলে দেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন জামান সোস্যাল ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক মো. আজিজুল হক কবীর, রাশিক জিপি হ্যাচারীর ম্যানেজার রফিকুল ইসলাম, জামান সোস্যাল ফাউন্ডেশনের এরিয়া ম্যানেজার আব্দুস সালাম, হিসাব রক্ষক আবুল হাশেম, ইউপি সদস্য আশাদুল হক প্রমুখ।
অপরদিকে, দামুড়হুদার গোপালপুর গ্রামে গরিব ও দুস্থদের মাঝে অদম্য সমাজ উন্নয়ন সংস্থার পক্ষে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। প্রাইমারি বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে আয়োজিত শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অদম্য সমাজ উন্নয়ন সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ডা. শামসুর রশীদ দিপু, সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস আলম, উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও রয়েল এক্সপ্রেসের স্বত্ত্বাধিকারী সালাউদ্দীন মল্লিক এবং এনামুল হক লোটাস, আলাউদ্দীন মাস্টার। আরও উপস্থিত ছিলেন টিপু মল্লিক, সেন্টু মল্লিক, মেম্বার মিনারুল ইসলাম, সুজন, বিদ্যুত, লেমন প্রমুখ।

Loading Facebook Comments ...

প্রত্যুত্তর দিন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করে আপনার নাম লিখুন