মহেশপুর উপজেলা নির্বাচনে বিএনপির পক্ষ নিয়ে আ.লীগ নেতাকে জুতা পেটা করলেন আওয়ামী লীগ নেত্রী

0
201

মহেশপুর প্রতিনিধি: মহেশপুরের খালিশপুর বাজারে গত মঙ্গলবার বিকেলে প্রকাশ্যে বিএনপি নেতার পক্ষ নিয়ে আওয়ামী লীগের একাধিক নেতাকে জুতা পেটা করলেন ইউনিয়ন মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী। গত ১৪ অক্টোবর পঞ্চম ধাপে মহেশপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এ নির্বাচনে ফতেপুর ইউনিয়নের সাড়াতলা কেন্দ্রে ভোট সংক্রান্ত বিষয়ে আওয়ামী লীগ নেতা সামাউল, রওশন ও যুবলীগ নেতা মিঠুর সাথে ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সেলিমের বাগবিত-া হয়। এরই জের ধরে খালিশপুর বাজারে মহিলা আ.লীগের নেত্রী আজব আলীর স্ত্রী বিএনপি নেতা সেলিমের ছেলের শ্বাশুড়ি সালে খাতুন ও তার লোকজন আক্রমন করে ডাক্তার রওশন আলীর বাড়িতে। এসময় সালে খাতুন, সামাউল ও ডাক্তার মিঠুকে পায়ের জুতা দিয়ে প্রকাশ্যে মারপিট করে। এসময় ফতেপুর ইউপি সদস্য আব্দুল মতিন ও এসবিকে ইউপি সদস্য ওহিদুল ইসলাম তাকে নিবৃত করে।
সাড়াতলা গ্রামের ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাক্তার রওশন আলী জানান, মঙ্গলবার বিকেলে তার নিজ ঘরে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা বসেছিলো। এ সময় সালেহ খাতুন ও তার ক্যাডার টোটনের নেতৃত্বে কিছু সংখ্যক লোকজন তাদের ওপর আক্রমন করে। এসময় সালেহ পায়ের জুতা খুলে কয়েকজন নেতাকে মারপিট করে। ডাক্তার মিঠু ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, লজ্জায় কিছ্ইু বলতে পারছি না। এ বিষয়ে সালেহ খাতুনের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমার মেয়ের শ্বাশুড়ির সাথে আওয়ামী লীগ নেতারা দুর্ব্যবহার করায় মঙ্গলবার বিকেলে খালিশপুর বাজারে আমি তাদেরকে জুতা পেটা করেছি। আমি ও আমার স্বামী দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামী লীগ করি। আমার জামাই বেয়াইরা বিএনপি করে এতে আমার অপরাধ হলেও কিছু করার নেই। এসবিকে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম বগা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।