কুষ্টিয়ায় হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড

0
215

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ায় কলেজ ছাত্রীকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় ছাত্রীর ভাইকে উপর্যুপরি ধারালো অস্ত্রের আঘাতে হত্যার দায়ে এক কলেজছাত্রের মৃত্যুদ-াদেশ দিয়েছেন আদালত।
গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক অরূপ কুমার গোস্বামী জনাকীর্ণ আদালতে আসামির উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করেন। মৃত্যুদ-প্রাপ্তরা হলেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হাতিয়া পূর্বপাড়া গ্রামের খবির উদ্দিন সেখের ছেলে উজ্জ্বল ইসলাম ওরফে উজ্জ্বল শেখ (২৮)।
আদালত সূত্রে জানায়, ২০১৮ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি ভালোবাসা দিবসে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় প্রেম প্রত্যাশী সহপাঠী কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের ছাত্র আসামি উজ্জ্বল সহপাঠী ছাত্রীর কাছ থেকে একাধিকবার প্রত্যাখ্যাত হয়েও ওই ছাত্রীর বাড়ি মিরপুর উপজেলার বালিয়াসিসা গ্রামে গিয়ে হাজির হন। সেখানে ছাত্রীর ভাই আব্দুল্লাহ বাড়ির ভেতরে ঢুকতে বাধা দেয়। এ সময় আসামি উজ্জ্বল কাছে থাকা ধারালো চাকু দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করে আব্দুল্লাহকে। তার চিৎকার শুনে মা সুফিয়া খাতুন ও চাচাতো ভাই শাজাহান আলী ঠেকাতে গেলে তাদেরকেও ধারালো চাকু দিয়ে উপর্যুপরি আঘাতে গুরুতর রক্তাক্ত জখম করে পালিয়ে যাওয়ার সময় আশপাশের লোকজন জড়ো হয়ে উজ্জ্বলকে আটক করে পুলিশে সৌপর্দ করে। এ ঘটনায় গুরুতর আহতদের উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আব্দুল্লাহকে মৃত ঘোষণা করেন।
এ ঘটনায় ১৫ ফেব্রুয়ারি মিরপুর থানায় নিহতের পিতা আসলাম শেখের করা হত্যা মামলায় একমাত্র আসামি করা হয় উজ্জ্বলকে। মামলাটি তদন্ত শেষে আসামি উজ্জ্বলের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে ২০১৮ সালের ৩০জুন আদালতে চার্জশিট দাখিল করে পুলিশ।
কুষ্টিয়া জজকোর্টের সরকারি কৌশুলী অ্যাড. অনুপ কুমার নন্দী জানান, সহপাঠী কলেজ ছাত্রীকে উত্ত্যক্তের জেরে ছাত্রীর ভাইকে হত্যা মামলায় আসামি উজ্জ্বলের বিরুদ্ধে সরাসরি হত্যাকা-ে জড়িত অভিযোগ সন্দেহাতীত প্রমাণিত হওয়ায় বিজ্ঞ আদালত তাকে মৃত্যুদ-ের আদেশ দিয়েছেন। মামলটির আসামি পক্ষের কৌশুলী ছিলেন অ্যাড. তানজিলুর রহমান এনাম।