বায়ু দূষণ : পরিবেশ রক্ষায় কার্যকর ব্যবস্থা নিতে হবে

0

বায়ু মানুষের জীবনধারণের সবচেয়ে অপরিহার্য উপাদান। কিন্তু বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার বাতাস এখন জীবনের জন্য হুমকি হয়ে দেখা দিয়েছে। আমরা জানি সামান্য কিছুটা সময় বাতাস গ্রহণ করতে না পারলে মানুষ মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। ঠিক একইভাবে বায়ুর বিশুদ্ধতা না থাকলে তা-ও মৃত্যুর কারণ হয়ে দেখা দিতে পারে। বায়ু দূষণের মধ্যে বসবাস করলে মানুষের তাৎক্ষণিক মৃত্যু হয় না, এটা ঠিক। কিন্তু মানুষ দ্রুতই মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যায়। বাতাসে যেসব ক্ষতিকর ধূলিকণা ও রাসায়নিক পদার্থ মিশে থাকে তা খালি চোখে দেখা যায় না। কিন্তু এসব ধূলিকণা ও রাসায়নিক পদার্থের কারণে মানুষের ফুসফুস আক্রান্ত হয়। আর সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, রাজধানী ঢাকার বাতাস এখন জনস্বাস্থ্যের জন্য বড় হুমকি হয়ে দেখা দিয়েছে। বৈশ্বিক বায়ুদূষণ পর্যবেক্ষণকারী আন্তর্জাতিক সংস্থা এয়ার ভিজ্যুয়ালের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী গত রোববার সকাল ৭টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত বেশির ভাগ সময় ঢাকাই ছিলো বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত বায়ুর শহর। এরপর কয়েক ঘণ্টার জন্য মঙ্গোলিয়ার রাজধানী উলানবাটোর ও ভারতের কোলকাতা শহর দূষণের দিক থেকে ঢাকাকে ছাড়িয়ে যায়। তবে রাত সাড়ে ৮টার পর ঢাকা আবার শীর্ষে চলে আসে। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটির এই তথ্যই বলে দিচ্ছে ঢাকার দূষণ কতটা বিপজ্জনক পর্যায়ে পৌঁছেছে। গবেষকরা বলছেন, চলতি মাসে এ পর্যন্ত আট দিন ঢাকা ছিলো বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত বায়ুর শহর।
ঢাকার বায়ু দূষণ নিয়ে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থা বারবারই সতর্ক করেছে। বাংলাদেশে বায়ু দূষণের উৎস নিয়ে চলতি বছরের মার্চে পরিবেশ অধিদফতর ও বিশ্বব্যাংকের গবেষণায় দেখা যায়, দেশে বায়ু দূষণের প্রধান তিনটি উৎস হচ্ছে ইটভাটা, যানবাহনের কালো ধোঁয়া ও নির্মাণকাজ। আট বছর ধরে এই তিন উৎস ক্রমেই বাড়ছে। আন্তর্জাতিক গবেষণা প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী বায়ু দূষণের জন্য নানা ধরনের উন্নয়নকাজ যতটা না দায়ী, তার চেয়ে বেশি দায়ী নগরীর চারপাশে ছড়িয়ে থাকা ইটভাটাগুলো। রাজধানীর চারপাশে গড়ে উঠা কমপক্ষে পাঁচ হাজার মানহীন ইটভাটা থেকে নির্গত ধোঁয়ায় বায়ু দূষণের কারণে দূষিত হচ্ছে রাজধানীর বাতাস। গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শুষ্ক মৌসুমে ঢাকার বায়ুদূষণের জন্য এসব ইটভাটা দায়ী ৫৮ শতাংশ। আইকিউএয়ার, এয়ারভিজ্যুয়াল ও গ্রিনপিস নামের তিনটি সংস্থা যৌথ গবেষণা প্রতিবেদনে বাংলাদেশকে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় বায়ু দূষণকারী দেশ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।
বাতাসের মান নিয়ে কাজ করা প্রতিষ্ঠান এয়ারভিজ্যুয়ালের ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত বায়ুর শহরের তালিকায় ১৯ নভেম্বর থেকে এক নম্বরে রয়েছে ঢাকা। দূষণ ঠেকাতে যেসব আইন আছে, সেগুলো না মানার কারণে ঢাকার দূষণ দৃশ্যমান হচ্ছে। বায়ুদূষণের কারণে ঢাকা শহরে মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি হচ্ছে। শিশুদের স্বাভাবিক শ্বাস-প্রশ্বাস বিঘিœত হওয়ার পাশাপাশি নানা শারীরিক জটিলতা দেখা দিচ্ছে। এ থেকে মুক্তি পেতে হলে অবিলম্বে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে হবে।

Loading Facebook Comments ...

প্রত্যুত্তর দিন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্য লিখুন!
অনুগ্রহ করে আপনার নাম লিখুন