ভ্রাম্যমাণ আদালতে ১০ জনের কারাদণ্ড : মুচলেকায় মুক্তি ৪

দামুড়হুদা থানা পুলিশের মাদকবিরোধী ঝটিকা অভিযান : ১৪ জন মাদকসেবীকে আটক

দামুড়হুদা প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গার নবাগত পুলিশ সুপারসহ জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে চুয়াডাঙ্গা জেলাকে মাদকমুক্ত করতে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে গতকাল সোমবার বিকেলে দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আকরাম হোসেনের নেতৃত্বে দর্শনা রেলগেটসহ চুয়াডাঙ্গা-দর্শনা সড়কের বিভিন্নস্থানে ঝটিকা অভিযান পরিচালনা করা হয়। আটক করা হয় ১৪ জন মাদকসেবীকে। এর মধ্যে দর্শনা তদন্তকেন্দ্রের অফিসার ইনচার্জ শোনিত কুমার গাইনের নেতৃত্বে দুজনকে আটক করা হয়। আটককৃতদের লজ্জা দিতে হাতে হাতকড়া পরিয়ে মাজায় দড়ি বেঁধে নেয়া হয় জনবহুল এলাকা দামুড়হুদা বাসস্ট্যান্ডে। ওখানেই বসানো হয় ভ্রাম্যমাণ আদালত। দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার রফিকুল হাসান ওই ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। তিনি পর্যায়ক্রমে আটককৃতদের বয়ান শোনেন। এ সময় আটককৃতদের মধ্যে একজন বললেন মা অসুস্থ, হাসপাতালে আছে। পাল্লায় পড়ে গিয়েছি। অল্প একটু খেয়েছি। এবারের মতো ক্ষমা করে দেন স্যার। আরও একজন বললেন দর্শনায় বোনের বাড়ি গিয়েছিলাম। ঠা-া লেগেছে তাই হাফ খেয়েছি। কেউ বললেন দর্শনায় টমেটোর আড়তে গিয়েছিলাম আবার কেউ বললেন বিশেষ কাজে গিয়েছিলাম। ওখানে একটু খেয়েছি। একজন বললেন অ্যালকোহল না অল্প একটু মদ খেয়েছি। এবারের মতো ক্ষমা করেন স্যার। সকলকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মাদক সেবনের অভিযোগে আটক ১৫ জনের মধ্যে ৮ জনকে ১৫ দিন করে এবং ২ জনকে ৭ দিন করে বিনাশ্রম কারাদ-ের আদেশ দেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক। সেই সাথে বাকি ৪ জনকে প্রাথমিকভাবে সতর্ক করে মুচলেকা নিয়ে ছেড়া দেয়া হয়। দ-প্রাপ্তরা হলেন- চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরের হাসপাতালপাড়ার আব্দুল মান্নানের ছেলে সুমন (১৮), সুমিরদিয়ার আশরাফুল ইসলামের ছেলে সোহেল রানা (১৮), চুয়াডাঙ্গা কেদারগঞ্জ বাহাদুরপাড়ার আমির হোসেনের ছেলে আতাউর রহমান জনি (১৮), কেদারগঞ্জ নতুন বাজারের মোরশেদ আলীর ছেলে ইমরুজ হোসেন (২১), মাস্টারপাড়ার খবির উদ্দীনের ছেলে মানিক (২৭), একই পাড়ার আলী হোসেনের ছেলে বাদশা (২৫), জিনতলাপাড়ার ছানোয়ার হোসেনের ছেলে শাহানুর রহমান সোহান (১৯) এবং দামুড়হুদা ফকিরপাড়ার শ্রী রনজিত কুমার পালের ছেলে শম্ভু কুমার পাল (২৪)। এই ৮ জনকে ১৫ দিন করে এবং জয়রামপুর কলোনিপাড়ার জান মোহাম্মদের ছেলে ফকির মোহাম্মদ (৩০) ও একই গ্রামের মাঠপাড়ার বশির আহাম্মেদের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম (৩৪) এই দুজনকে ৭ দিনের বিনাশ্রম কারাদ- দেয়া হয়। এছাড়া দর্শনা ঈশ্বচন্দ্রপুরের মৃত আজিবার ম-লের ছেলে গাজিউর রহমান (৭০), একই গ্রামের আকবার আলীর ছেলে মিলন হোসেন (৩২), আজির বক্সের ছেলে মিঠু (৩০) এবং শ্যামপুরের মৃত শহিদুল ইসলামের ছেলে মামুন (৩০) এই ৪ জনকে প্রাথমিকভাবে সতর্ক করে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা কাজে সহযোগিতা করেন দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নাজির হামিদুল ইসলাম, সার্টিফিকেট সহকারী জিহান আলী। দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আকরাম হোসেন, ওসি (তদন্ত) জিএম এমদাদুল হক, দর্শনা তদন্তকেন্দ্রের অফিসার ইনচার্জ শোনিত কুমার গায়েন এ সময় উপস্থিত ছিলেন। দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আকরাম হোসেন বলেছেন, জেলার পুলিশ সুপারের নির্দেশেই মাদকবিরোধী ঝটিকা অভিযান চালানো হয়েছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।
দামুড়হুদা মডেল থানার এসআই মনির, এসআই আব্দুল বাকী, এসআই আব্দুল গফুর, এসআই তপন কুমার নন্দী, এএসআই সালেজুজ্জামান, এএসআই এজাজা গতকালের ওই মাদকবিরোধী ঝটিকা অভিযানে অংশ নেন।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.